সম্পাদকের কথা - অক্টোবর ২০১৭

পুজো-টুজো শেষ, তবে উৎসবের তো আর কমতি নেই। প্রতিদিনই হরেক কিসিমের হুজুগ লেগেই আছে। দুগ্গা দুগ্গা বলে নাকের জলে চোখের জলে ভেসে বিসর্জন দিতে না দিতেই লক্ষ্মীদেবী হাজির। তিনি পাততাড়ি গোটানোর পরপরই আবার কালীপুজো, দীপাবলী। তিমিরবিনাশের, তিমিরবিলাসের উৎসব। সেসবও ফুরোয়। ছেঁড়াখোড়া ফানুস ল্যাম্পপোস্টে আটকে বৃষ্টিতে ভিজে চুব্বুস হয়। কত কত বছরের পর দেখা হয় ভাইবোনের। সর্ষেক্ষেতের দুপ্রান্ত থেকে ওরা ছুটে আসে দুহাত ছড়িয়ে। প্রবাসী ফোঁটা নিয়ে মুঠোফোনের স্ক্রিন রাঙা হয়।


ছুটি ফুরোয়। উৎসব ফুরোয় না। ঘিজিঘিজি দিনের ফাঁকে চারাগাছের মতো দাঁড়িয়ে থাকে, টুকটুক করে মাথা নাড়ে। চলতে চলতে হঠাৎ থমকে একটু খুঁজলে, চোখে পড়ে।

ওই চারাগাছ দেখে দেখেই আমাদের পথচলা। উৎসবের ছোঁয়াটুকু গায়ে মেখে তাই হাজির হয়েছি আবার। যা কিছু পেয়েছি আপনাদের মতো গুণী মানুষজনের কাছ থেকে, তাই নিয়ে সাজিয়েছি এই আনন্দের ডালি। পত্রিকা ভালো লাগলে জানান, খারাপ লাগলেও। মাথা পেতে আপনাদের মতামত নিয়ে ভুলচুক শুধরে নেওয়ার চেষ্টা করব।

এবারের মত এটুকুই। ভালো থাকুন, আনন্দে থাকুন।

পরবাসিয়া পাঁচালী


পাঠকেরা যা পড়ছেন