আর্জি


রজত দাস


আশীর্বাদ তো কত নিয়েছি—
ভালবেসে অথবা খুঁজে, স্বার্থে নিঃস্বার্থে 
সদিচ্ছায় বা অনিচ্ছায় ঘাড় অর্ধেক বাঁকানোর ভর্ত্সনা পেয়ে।
ব্যর্থতার ভয় কাটাতে হঠাৎ ভদ্র হয়েছি বারবার,
সত্যি! অনেক আশীর্বাদ পেয়েছি।
আবার এসেছি!
এবার আর স্নেহের পরশ দিও না।
মুখ ফিরিয়ে বেশ খানিকক্ষণ অভিশাপ দাও—
এ খেলায় হারতে চাই,
প্রতি রাউন্ডে যেন মাথাটা সজোরে মাটিতে আছড়ে পড়ে।
সময়ে রক্ত জমে গেছে।
সব বুঝি স্বঘোষিত? আর
জয়ের একঘেয়েমিতে পচেছে?
চারশ তলার ছাদ থেকে এবার আমায় ফেলে দাও,
জমে যাওয়া রক্ত শরীর ছাড়িয়ে প্রবাহিত হোক,
মাটিতে পরে যদি এক মুহূর্তের জন্য 
চিনতে পারি নিজেকে! তাতেই ঢের।
আমি এখনো দাঁড়িয়ে আছি,
মাটি থেকে অনেক অনেক উপরে
উষ্ক মাথায়, বিবর্ণ চেহারায়
দাঁতে নখ কেটে কেটে আঙুল কামড়াচ্ছি জিদে।
আমাকে ভীষণভাবে অভিশপ্ত করে দাও আজ,
যত তাড়াতাড়ি সম্ভব,
আমি হেরে গিয়ে আর 
ঐ একটি শেষমুহূর্তকে বাঁচতে চাই।

পাঠকেরা যা পড়ছেন