তারুণ্যের ফাল্গুনে - সুরঞ্জিৎ গাইন

তারুণ্যের ফাল্গুনে
সুরঞ্জিৎ গাইন
জড়তার শৈত্য প্রবাহ কাটিয়ে
এলাম তারুণ্যের ফাল্গুনে—
সুদীর্ঘ অনেক কাল গুনে
অনেক বাধা পেরিয়ে
পেলাম আকাঙ্খিত
সেই ছবি।
অনুরাগের অরুণ স্পর্শে
সারা শরীরে শিহরণ!
গাঢ় লালিমায় লাল
বিস্তৃত মনের দিগন্ত।
মনে হয় অতীতের বহু দিন ধ'রে
আমি অনশন ক্ষিণ্ণ!
প্রায় মৃত—
আজ বেঁচে উঠেছি পূর্ণ রূপে
কোন নব পরিচিতার
প্রিয় নাম আর প্রেম অমৃত পান ক'রে!
মৃত সঞ্জীবনীর সন্ধান দিয়েছে সে-ই।
খুঁজে পেয়েছি তার অধরে নয়নে
তার চলনে বলনে
মহা শক্তির সমৃদ্ধ সংকেত।
উচ্ছ্বসিত খুশীর ইঙ্গিতে মনে হয়
আমি এক মহাকাশ!
নীলিমা ময় অনন্ত শূন্য—
পূর্ণ হ'য়ে আছি কোটি তারকায়।
অগণিত নক্ষত্র আমার দিকে
আনন্দে মিট মিট ক'রে তাকায়।
অজস্র গ্রহ রত্নের মালা পরিয়ে
প্রেমের দেবতা অভিনন্দন জানায়—
মেঘে মেঘে বজ্রের ডঙ্কা বাজিয়ে
আমার রাজ্য অভিষেক হয়—
মনে করি প্রেমের সাম্রাজ্যে আমিই সম্রাট।
সূর্যের কিরীটি-মুকুট প'রে
আমি শাসন করি মহা বিশ্ব।
অফুরন্ত বারুদ আর আগ্নেয় লাভা
দাউ দাউ করে মাথার উপর।
অসহায়ের মত জ্বলে পুড়ে মরে
বিশ্ব প্রকৃতি—শুধু কাতরায়!
ঝলসে যায় নিষ্প্রেম ভূ-মণ্ডল
জ্বালা ময় যৌবনের দাব দাহে।

পাঠকেরা যা পড়ছেন